এশিয়ানদের খাদ্যাভাসের কথা বলতে গেলে অনেক কথাই বলা যায়। তার মাঝে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য যে বিষয় গুলো আছে সেগুলো নিয়ে কিছু তথ্য জানাচ্ছি।

হাত দিয়ে খাওয়া

এশিয়ানরা দিনে তিনবার খাবার খায় আর এখানে তরকারি দিয়ে ভাত খাওয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অভ্যাস হচ্ছে হাত দিয়ে খাওয়া। পাশ্চাত্যের দেশগুলোর মতো সাধারণত এশিয়ার সব দেশ এ চামচ বা ছুরি ব্যবহার করে খাওয়া হয় না বরং এখানে বেশিরভাগ দেশে হাত দিয়েই খাবারের কাজ সম্পন্ন করা হয়। তবে এখানে যেহেতু বেশিরভাগ মানুষ ডানহাতি সেহেতু ডানহাত দিয়ে খাবার খাওয়া হয় এবং এক্ষেত্রে দুই হাত দিয়ে খাওয়ার কাজ করা হয় না। 

চপস্টিক ও চামচ

আপনি যদি খাওয়ার সময় আপনার আঙ্গুল পরিষ্কার রাখতে চান এবং সোজা কথায় হাত দিয়ে খেতে না চান তবে এ তথ্যটি আপনার জন্য বেশ উপকারী হতে পারে যদি আপনি এশিয়ায় ঘুরতে আসেন। এশিয়ান দেশগুলোর সবখানেই হাত দিয়ে খাওয়া হয়না অনেক জায়গায় চপস্টিক এবং চামচ ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সেসব দেশগুলোতে আপনি হাত দিয়ে খাওয়ার পরিবর্তে খুব সহজেই এগুলো ব্যবহার করে খাবার খেতে পারবেন। তবে আপনার যদি হাত দিয়ে ক্ষেত্রে কোন ধরনের সমস্যা না থাকে তাহলে এশিয়ান খাদ্যাভ্যাস হতে পারে আপনার জন্য খুবই পছন্দের এবং চমৎকার একটি খাদ্যাভ্যাস।

শুধু ভাত খাওয়া 

এশিয়ানদের একটি অদ্ভুত খাদ্যাভ্যাস হচ্ছে তারা দিনে তিনবেলা খাবার এই ভাত খেয়ে থাকে। অন্যান্য মহাদেশ বা দেশের মানুষের কাছের এই বিষয়টি অদ্ভুত লাগলেও তাদের কাছে সকালে দুপুরে এবং রাতে ভাত খাওয়াটা খুবই স্বাভাবিক একটি ব্যপার। এবং অনেকের কাছে হয়তো মনে হতে পারে তিনবেলা এভাবে ভাত খেলে চরম পরিমাণের স্বাস্থ্যঝুঁকিতে থাকতে হতে পারে কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে এশিয়ান তিনবেলা ভাত খেয়েও সুস্থ ও চিকন হয়ে থাকে।

গরম চা

এশিয়ানদের আরেকটি খাদ্যাভ্যাস হচ্ছে গরম চা খাওয়া এবং এ কাজটি তারা দিনে বহুবার করে থাকে। সকালে দুপুরে রাতে খাওয়ার আগে পরে কিংবা কাজের ফাঁকে সময় পেলেই এশিয়ানরা চা খেয়ে থাকে।

ঝাল

আপনি যদি এশিয়াতে একজন পর্যটক হিসেবে যান এবং আপনি অতিরিক্ত ঝাল খেতে পারদর্শী না হন তবে খাওয়ার সময় সবচেয়ে কম ঝাল এর খাবারটি খেতে বসলেও আপনি ঝালের চোটে ঘামতে শুরু করবেন। এশিয়ান রাত খাবার ঝাল খেতে এত বেশি পছন্দ করে যে তাদের সবচেয়ে কম ঝালের খাবার টিও অনন্য মহাদেশে মানুষের কাছে প্রচুর ঝাল লাগতে পারে।

ভাগ করে খাওয়া

এশিয়ান দের খাদ্যাভ্যাসের খুব সচরাচর একটি বিষয় হচ্ছে একজনের সাথে অন্যজনের খাবার ভাগ করে খাওয়া। এশিয়ায় খুব কম ক্ষেত্রেই দেখা যায় একজন মানুষ কোন খাবার কিনে তার সাথের মানুষকে তার কোন ভাগ না দিয়ে পুরোটাই একাই খেয়ে ফেলছে। বরং একজন খাবার খেলে সেটি তিনি অপর জনের সাথে ভাগাভাগি করে খান। এবং খাবার খেতে খেতে তাদের গল্প করার যে অভ্যাস সেটি খুবই চমৎকার একটি খাদ্যাভ্যাস হিসেবে ধরা যায়। 

এশিয়ানদের এই খাদ্যাভ্যাস গুলো মনে রাখলে হয়তোবা আপনি যদি কখনো এশিয়ার কোন দেশের ঘুরতে যান তবে হয়তো কখনও এই তথ্যগুলো সাহায্য করতে পারে।