বেকিং এর মাধ্যমে তৈরি করা খাবার গুলোর মাঝে কেক হচ্ছে একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় খাবার এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠান বিশেষ করে জন্মদিন এর ক্ষেত্রে কেক একটি অপরিহার্য উপাদান হিসেবে কাজ করে। তাহলে আসুন দেখে নেওয়া যাক এই কেক তৈরীর ক্ষেত্রে কোন বিষয়গুলো মাথায় রাখলে সহজেই আপনি আপনার কেকের মান বৃদ্ধি করতে পারবেন এবং একটি সুন্দর টেক্সচার বজায় রাখতে পারবেন।

ময়দা

ময়দার কেক তৈরি করার সময় প্রথমেই যে উপাদানটি মৌলিক ভূমিকা পালন করে তা হচ্ছে ভালো মানের ময়দা। ময়দা নির্বাচনের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে আপনার বাছাই করা ময়দা যাতে ভালো মানের হয় এবং বেশি পুরাতন না হয়। কারণ বেশি পুরাতন হলে অনেক সময় দেখা যায় ময়দার জায়গায় জায়গায় জমাট বেঁধে যায় এবং সেগুলো টেক্সচারে ধরা পরে এবং কেকের টেক্সচারকে অনাকাঙ্ক্ষিত করে ফেলে। তাই অবশ্যই ভালো মানের পরিষ্কার ময়দা ব্যবহার করতে হবে এবং যদি ময়দা কোন কারণে পুরাতন হয়ে থাকে তাহলে ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই তা ছেঁকে নিতে হবে।

ডিম 

ডিম ব্যবহার করার ব্যাপারে কখনো কখনো সম্পূর্ণ ডিম ব্যবহার করতে হয় এবং কখনও কখনও ডিমের শুধু কুসুম অথবা শুধু সাদা অংশে ব্যবহার করতে হয়। এক্ষেত্রে আপনি যে ধরনের ব্যবহার করছেন সেই অনুযায়ী ডিম নির্বাচন করতে হবে। সাধারণত আপনার কেকে যদি মাখনের পরিমাণ বেশি থাকে তাহলে ডিমের সাদা অংশ ব্যবহার করা শ্রেয়। কিন্তু আপনার কেকের মাঝে যদি ফ্যাটের পরিমাণ কম থাকে বা মাখনের পরিমাণ কম থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে অবশ্যই ডিমের কুসুম ব্যবহার করতে হবে। কারণ ডিমের কুসুম নিজেও একটি ফ্যাটের উৎস হিসেবে কাজ করে এবং সবমিলিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

চিনি 

বাজারের বিদ্যমান চিনি গুলোর মাঝে দুই ধরনের চিনি সবচেয়ে বেশি দেখা যায়। এক হচ্ছে ব্রাউন সুগার (Brown Sugar) এবং অপরটি হোয়াইট সুগার (White Sugar)। কেক তৈরির ক্ষেত্রে সাধারণত হোয়াইট সুগার ব্যবহার করা হয়ে থাকে কারণ হচ্ছে হোয়াইট সুগার এর তুলনায় ব্রাউন সুগার অনেক বেশি ঘন প্রকৃতির হয়। সেজন্য কেকের মোলায়েম টেক্সচার বজায় রাখার জন্য ব্রাউন সুগার ব্যবহার করা হয় না। তার পরিবর্তে ভালোমানের  হোয়াইট সুগার ব্যবহার করতে হয়। আরও ভালো ফলাফল পেতে কেক তৈরীর সময় সুন্দর টেক্সচার বজায় রাখতে আপনি হোয়াইট সুগারের প্রক্রিয়াজাতকৃত ধরন ব্যবহার করতে পারেন যা সাধারণতঃ বেকিং সুগার বা আইসিং সুগার নামে পরিচিত। এখানে খেয়াল রাখতে হবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে আইসিং সুগার মিহি চিনির দানার পাশাপাশি এক ধরনের স্টার্চ  বিদ্যমান থাকতে পারে তাই কেনার পূর্বে অবশ্যই সেটা লক্ষ্য রাখতে হবে।

মাখন বা তেল 

কেক তৈরির ক্ষেত্রে ফ্যাট এর উৎস হিসেবে মাখন বা তেল ব্যবহার করতে হয়। এদের মাঝে মৌলিক পার্থক্য হচ্ছে মাখনে ফ্যাট এর পাশাপাশি বিভিন্ন মিলক সলিডস্‌ বিদ্যমান থাকে যেগুলো বেশি তাপমাত্রায় পুড়ে যেতে পারে এবং পুড়ে বাদামি বর্ণ ধারণ করতে পারে। তাই আপনার কেকের আকৃতি অনুযায়ী এবং কেমন তাপমাত্রায় কেকটি তৈরি করবেন সেই অনুযায়ী আপনাকে মাখন বা তেলের মাঝে একটি বাছাই করতে হবে 

ওভেন সেটিংস 

অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কেক তৈরি করার জন্য ইলেকট্রিক ওভেন বা গ্যাস ওভেন ব্যবহার করা হয়। বাজারে বিদ্যমান যে ওভেনগুলো আছে সেগুলোর অধিকাংশের উপরিতলে একটি গ্রিল সেটিংস বিদ্যমান থাকে। সাধারণত কেক ব্যবহার করার সময় এই গ্রিল সেটিংস টা অফ করে নিতে হয় কারণ হচ্ছে গ্রিল এর ব্যবহার করলে কেকের উপরিভাগে একটি বাদামি আস্তরণ পড়তে পারে।

এই কৌশলগুলো অনুসরণ করলে সহজেই মানসম্মত কেক তৈরি করতে পারবেন এবং কেক এর আকর্ষণীয় টেক্সচার বজায় রাখতে পারবেন।